বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14.6k টি প্রশ্ন

16.2k টি উত্তর

5.7k টি মন্তব্য

5.9k জন নিবন্ধিত

+1 টি ভোট
760 বার প্রদর্শিত
"ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য

2 উত্তর

+1 টি ভোট
প্রাইজ বন্ড এবং এর ড্র থেকে যে অর্থ আসে তার মৌলিক প্রক্রিয়া ইসলামে বৈধ। কিন্তু এই টাকা ব্যাংক বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করে ও ঋণ দেয়। ফলে সেখান থেকে ব্যাংক সুদ নেয়। সার্বিক বিবেচনায় সরাসরি বললে অবৈধ। কিন্তু আপেক্ষিক বিবেচনায় ইসলামি ব্যাংকের কার্যক্রমও ইসলাম অনুযায়ী অবৈধ।

এই বিষয়টা বিবেচনা করুনঃ আপনি সুদের টাকা একজনকে ধার দিলেন বা কাউকে দান করলেন, এখন যাকে (তিনি হয়তো জানেন বা জানেন না এই ব্যাপারে) দিলেন তিনি কি পাপ করলেন নিয়ে? ইসলামি ব্যাংকসহ সকল ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংক-এর অধীনে চলে। ফলে সকল ব্যাংক-ই সুদের লেনদেন করে (প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে)। তাছাড়া অর্থের প্রয়োজনে ইসলামি ব্যাংককেও কল মানি মার্কেট থেকে অর্থ নিতে হয় যার জন্য সুদ দিতে হয়।

অর্থাৎ, মন্দের ভালো। তবে লটারি থেকে প্রাইজ বন্ড অনেক অনেক গুন ভালো। কারণ, লটারি জুয়া খেলার সমান। এক্ষেত্রে একজন অন্যজনদের নিঃস্ব করে লাভবান হয়।

 

 

Signature:

"সৎ কাজ করার চেয়ে সৎ সঙ্গ অধিক উত্তম।"
উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (6.3k পয়েন্ট)
ধন্যবাদ। আল্লাহ আপনার মঙ্গল করুক।
+1 টি ভোট
ju1111 ভাই যে যুক্তি দিয়েছেন তা পছন্দ হয়েছে। আমি একটু কপি পেস্ট করলাম। প্রাইজ বন্ড ক্রয় করা ড্র এর মাধ্যমে পাওয়া পরুস্কারের টাকা হালাল হওয়া প্রসংগে জবাব بسم الله الرحمن الرحيم আমাদের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী বর্তমান প্রচলিত প্রাইজ বন্ড ও ড্র পদ্ধতিতে সুদ ও জুয়া শামিল হওয়ায় তা ক্রয় করা ও লাভ নেয়া জায়েজ নয়। {ফাতওয়ায়ে উসমানী-৩/১৭৩-১৭৬} قوله تعالى- وَأَحَلَّ اللَّهُ الْبَيْعَ وَحَرَّمَ الرِّبَا অনুবাদ-আল্লাহ ব্যবসাকে হালাল করেছেন, আর সুদকে করেছেন হারাম। {সূরা বাকারা-২৭৫} قوله تعالى- يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ اتَّقُواْ اللَّهَ وَذَرُواْ مَا بَقِيَ مِنَ الرِّبَا إِن كُنتُم مُّؤْمِنِينَ (278) অনুবাদ-হে মুমিনরা! তোমরা আল্লাহকে ভয় পাও। আর সুদের অংশকে ছেড়ে দাও যদি তোমরা মুমিন হয়ে থাক। {সূরা বাকারা-২৭৮} قوله تعالى- يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ لاَ تَأْكُلُواْ الرِّبَا أَضْعَافًا مُّضَاعَفَةً অনুবাদ-হে মুমিনরা! তোমরা চক্রবৃদ্ধিহারে সুদ খেয়ো না। {সূরা আলে ইমরান-১৩০} عبد الله بن مسعود عن أبيه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال لعن الله آكل الربا وموكله وشاهديه وكاتبه হযরত আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ রাঃ এর পিতা থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন-“যে সুদ খায়, যে সুদ খাওয়ায়, তার সাক্ষী যে হয়, আর দলিল যে লিখে তাদের সকলেরই উপর আল্লাহ তায়ালা অভিশাপ করেছেন। (মুসনাদে আহমাদ, হাদিস নং-৩৮০৯, মুসনাদে আবি ইয়ালা, হাদিস নং-৪৯৮১) والله اعلم بالصواب সুত্রঃ http://jamiatulasad.com/?p=1178

 

 

Signature:

প্রবাসে থেকেও মন পড়ে আছে দেশে।
উত্তর প্রদান করেছেন Senior User (125 পয়েন্ট)
ধন্যবাদ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
+1 টি ভোট
4 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
31 অগাস্ট 2013 "ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য
0 টি ভোট
3 টি উত্তর
03 নভেম্বর 2012 "ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন ak azad New User (3 পয়েন্ট)

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...